ত্রাণ-স্বাস্থ্যের দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘আরও কঠোর হবে’ দুদক

Total Views : 233
Zoom In Zoom Out Read Later Print

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কাজের গতি কমে গেলেও ত্রাণ এবং স্বাস্থ্যখাতে চিহ্নিত দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে আরও ‘কঠোর’ হবেন বলে জানিয়েছেন সংস্থার চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার কমিশনের এক বছর মেয়াদী কৌশলগত কর্মপরিকল্পনা এবং ২০১৯ সালের বাস্তবায়ন প্রতিবেদনের ওপর পূর্ণাঙ্গ কমিশনের এক ভার্চুয়াল সভায় তিনি এ কথা বলেন।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, “করোনার কারণে কমিশনের নিয়মিত অভিযান স্থগিত রাখা হলেও ত্রাণ এবং স্বাস্থ্যখাতে চিহ্নিত দুর্নীতিপরায়ণদের বিরুদ্ধে আইনি অভিযান আরও সক্রিয় করা হবে। জনগণের কল্যাণেই এসব অপরাধীকে আইনের আওতায় আনা হবে।”

সভায় জানানো হয়, এই মহামারীর মধ্যেও দুদকের কর্মকাণ্ড অব্যাহত আছে। এ পর্যন্ত ১৮ জন কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, দুইজনের মৃত্যুও হয়েছে।

কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ইকবাল মাহমুদ বলেন, “এর মধ্যেও আপনারা মামলা করছেন, অপরাধীদের গ্রেপ্তার করছেন, অভিযোগ সংশ্লিষ্টদের তলব করছেন, জিজ্ঞাসাবাদ করছেন। দুর্নীতির অভিযাগের অনুসন্ধান, তদন্ত, প্রসিকিউশন, প্রতিরোধসহ সকল প্রকার দাপ্তরিক কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এটা আপনাদের কৃতিত্ব।”

সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, “প্রয়োজনে বাসায় বসে অনুসন্ধান ও তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করবেন। এক্ষেত্রে অবশ্যই নথির মুভমেন্ট রেজিস্ট্রার অনুসরণ করতে হবে এবং তা কমিশনের সচিবকে অবহিত করতে হবে।”

কমিশনের মানিলন্ডারিং অণুবিভাগের কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ২০১৯ সালে কমিশনের ১১টি মানিলন্ডারিং মামলার ১১টিতেই অপরাধীদের সাজা হয়েছে। ২০১৮ সালেও শতভাগ মামলায় সাজা হয়েছিল।

বিদেশে অর্থ পাচার বন্ধে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ‘পাচারকারীদের’ বিরুদ্ধে মামলা করে সংশ্লিষ্ট সম্পদ উদ্ধারের পদক্ষেপ নিতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন দুদক চেয়ারম্যান।

See More

Latest Photos