করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত চিকিৎসকসহ শিবচরের ৩ জন আইসোলেশনে সবাই নারায়নগঞ্জ ফেরৎ

মাদারীপুর প্রতিনিধি-
নমুনা টেস্টে  শিবচরে করোনা সনাক্ত হওয়া ৩ জনের মধ্যে চিকিৎসককে ঢাকায় ও অপর ২ জনকে মাদারীপুর আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে।  আক্রান্ত চিকিৎসককে ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আক্রান্ত চিকিৎসক শিবচর হাসপাতালের এক নারী চিকিৎসকের স্বামী। সেও পেশায় চিকিৎসক। সে নারায়নগঞ্জে প্রাকটিস করে বলে জানা গেছে। চিকিৎসক আক্রান্ত হওয়ায় তার অবস্থানরত ডক্টরস কোয়ার্টারটি লকডাউন করা হয়েছে। ওই কোয়ার্টারটিতে আক্রান্তর পরিবারসহ আরো ২ চিকিৎসক দম্পত্তিসহ ৩ জন চিকিৎসক পরিবারসহ বসবাস করেন। এরা সকলেই বর্তমানে অবরুদ্ধ হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।  এছাড়াও শিবচরের আক্রান্ত অন্য দুজন নারায়নগঞ্জ থেকে আগত।  রাজৈর ও কালকিনিতে ২ শনাক্তকে সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও শিবচরের আরো ৮জন সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে রয়েছে।  এই ৮ জনের মধ্যে ৫ জন ছাড়পত্র পাওয়ার পর ২য় দফায় আইসোলেশনে রয়েছে। এদের বাড়ি ঘর লকডাউন ও বাড়ির লোকদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এনিয়ে মাদারীপুরের মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৮ জনে। আইইডিসিআরের একটি টিম শিবচরের বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান নিয়ে নমুনা সংগ্রহ করছেন।  শিবচর উপজেলার দক্ষিন বহেরাতলা হাজী আবুল কাশেম উকিল মা শিশু কল্যান কেন্দ্রকে ২০ শয্যার আইসোলেশন কেন্দ্র ঘোষনা করা হয়েছে।  ১৯ মার্চ থেকে প্রথমে কনটেইনমেন্ট পরে লকডাউন চলছে শিবচর উপজেলায় ।
হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা এক নারী চিকিৎসক মুঠোফোনে বলেন, দুপুরের দিক আমাদের কোয়ার্টারটি লকডাউন করা হয়েছে। এই ডক্টরস কোয়ার্টারে ৪ চিকিৎসক দম্পত্তির পরিবার রয়েছে। 
শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা ডাঃ শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, আক্রান্ত চিকিৎসককে ঢাকা ও অন্য ২ জনকে মাদারীপুর আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। এরা সবাই নারায়নগঞ্জ সম্পৃক্ত। চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী স্যারের নির্দেশে বহেরাতলায় মা ও শিশু কল্যান কেন্দ্রে ২০ শয্যার আইসোলেশ কেন্দ্র চালু হচ্ছে। 
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, ডক্টরস্ কোয়ার্টারের নীচতলায় চিকিৎসকের করোনা পজিটিভ আসায় ভবনটি লকডাউন করা হয়েছে। 

বিষয়:   স্থানীয় সংবাদ       রবিবার ১২ এপ্রিল, ২০২০